অবশেষে খুলল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, উৎসবমুখর পরিবেশে শিক্ষার্থী

অবশেষে খুলল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, উৎসবমুখর পরিবেশে শিক্ষার্থী

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ 
করোনা মহামারির কারণে প্রায় দেড় বছর পর আজ রবিবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলেছে উৎসবমুখর পরিবেশে। খুলে দেওয়া হয়েছে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। একই সঙ্গে কওমি মাদরাসাগুলো খুলে দেওয়া হয়েছে৷

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও মহামারির কারণে ১৭ মার্চ ২০২০ থেকে ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১ তারিখ পর্যন্ত সরকারি নির্দেশনায় দেড় বছরের অধিক সময় বন্ধ রাখা হয়েছে সকল প্রকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। শিক্ষার্থীদের জন্য এই সময়টি ইতিহাস হয়ে থাকবে।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষার্থীদের সশরীরে শ্রেণিকক্ষে পাঠদানের ব্যবস্থা করেছে প্রতিষ্ঠানগুলো ৷ শিক্ষার্থীদের সশরীরে ক্লাস নিতে ক্যাম্পাসে প্রবেশের আগেই হাতধোয়া, মাস্কপরাসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিষয়গুলো তদারকি করছে স্ব-স্ব প্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষকরাই।  শিক্ষার্থীরা ক্লাসের মধ্যে যেন সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে সেটি নিশ্চিতে তদারকিও করছেন তারা।

রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) সকালে রাজধানীর আজিমপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজ পরিদর্শনে এসে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, বর্তমানে করোনার পাশাপাশি ডেঙ্গুর প্রকোপ রয়েছে। এ অবস্থায় শিক্ষার্থীরা যদি তাদের ইউনিফর্ম এর বাইরে নিজেদের পছন্দমতো পোশাক পরে স্কুলে আসে, তাহলে বাধা দেওয়ার দরকার নেই। তাছাড়া, অনেক শিক্ষার্থীর ইউনিফর্ম স্বাভাবিক মাপমতো নেই। তাই এ বিষয়ে চাপ দেওয়ার দরকার নেই। স্কুলের টিউশন ফি’র বিষয়ে অভিভাবকদের প্রতি নমনীয় হওয়ার নির্দেশ দেন শিক্ষামন্ত্রী।

শ্রেণিকক্ষ অপরিচ্ছন্ন রাখায় আজিমপুর গভর্নমেন্ট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর হাছিবুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। সেই সঙ্গে তার নেতৃত্বে গঠিত মনিটরিং কমিটির সদস্য শিক্ষকদেরও সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। সকালে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি উক্ত স্কুল পরিদর্শনে গিয়ে তাদের সাময়িক বরখাস্তের নির্দেশ দেন।

এই সময় শিক্ষামন্ত্রী বলেন, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার বিষয়ে সবার সচেতনতা এক রকম নয়। যারা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিদর্শনে যাবেন, তাদের একটু সচেতন থাকতে হবে। স্কুলের প্রতিটা আনাচে-কানাচে খুঁজে দেখতে হবে। কোথাও যেন ময়লা না থাকে।

উল্লেখ্য, শুরুতে চলতি বছরের এসএসসি-এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার্থীদের সপ্তাহে ৬ দিন করে ক্লাস নেওয়া হবে। মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের সপ্তাহে ১ দিন ক্লাস হবে। একটি ক্লাসের শিক্ষার্থীদের তিনটি কক্ষে বিভাজন করে ক্লাস নেওয়া হবে। এছাড়াও প্রথম থেকে তৃতীয় শ্রেণির সপ্তাহে ১ দিন আর চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণির সপ্তাহে ৬ দিন ক্লাস করানো হবে।

 

পোষ্টটি প্রয়োজনীয় মনে হলে শেয়ার করতে পারেন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!