অবশেষে সাহেদ অস্ত্রসহ ভারতে পালানোর সময় সীমান্তে গ্রেফতার

অবশেষে সাহেদ অস্ত্রসহ ভারতে পালানোর সময় সীমান্তে গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা পরীক্ষায় প্রতারণার মামলায় বহুল আলোচিত বেসরকারি রিজেন্ট হাসপাতাল ও রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। ১৫ জুলাই, বুধবার ভোর সাড়ে পাঁচটায় সাতক্ষীরার দেবহাটা সীমান্ত থেকে অবৈধ অস্ত্রসহ তাকে গ্রেফতার করা হয়।

বোরকা পরে ছদ্মবেশে সীমান্ত পাড়ি দেওয়ার চেষ্টা করেছিল রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান সাহেদ করিম ওরফে মোহাম্মদ সাহেদ তখন র‍্যাবের বিশেষ একটি দল গোয়েন্দা পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল সারওয়ার বিন কাশেমের নেতৃত্বে পরিচালিত অভিযানে তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানান র‍্যাবের গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আশিক বিল্লাহ।

তার কাছ থেকে গুলি ভর্তি একটি বিদেশি পিস্তল উদ্ধার করা হয়েছে। গ্রেফতারের পর তাকে জরুরি ভিত্তিতে র‍্যাবের বিশেষ হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় নিয়ে আসা হয়েছে। তাকে র‍্যাব সদর দফতরে নিয়ে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত ৬ জুলাই র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলমের নেতৃত্বে রিজেন্ট হাসপাতালের উত্তরা ও মিরপুর কার্যালয়ে অভিযান চালানো হয়। পরীক্ষা ছাড়াই করোনার সনদ দিয়ে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা ও অর্থ হাতিয়ে নিয়ে আসছিল তারা। র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত অন্তত ছয় হাজার ভুয়া করোনা পরীক্ষার সনদ পাওয়ার প্রমাণ পায়। একদিন পর গত ৭ জুলাই স্বাস্থ্য অধিদফতরের নির্দেশে র‌্যাব রিজেন্ট হাসপাতাল ও তার মূল কার্যালয় সিলগালা করে দেয়। রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে ওই দিনই উত্তরা পশ্চিম থানায় নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়।

অর্থ আত্মসাৎ, করোনার ভুয়া সনদ দান, সাধারণ মানুষের সঙ্গে চিকিৎসাজনিত প্রতারণা করে অর্থ হাতিয়ে নেওয়া ছাড়াও সাহেদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রতারণার অভিযোগ রয়েছে। রিজেন্ট কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শিক্ষার্থীদের জাল সনদ দেওয়ার অভিযোগও রয়েছে।

পোষ্টটি প্রয়োজনীয় মনে হলে শেয়ার করতে পারেন...

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!