এবি ব্যাংকের ১২১ কর্মী ছাঁটাই

এবি ব্যাংকের ১২১ কর্মী ছাঁটাই

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনায় আর্থিক ক্ষতি সামাল দিতে বেসরকারি মালিকাধীন এবি ব্যাংক লিমিটেড একসঙ্গে ১২১ জন ব্যাংক কর্মীকে ছাঁটাই করেছে। গত ৮ জুলাই ১২১ কর্মীর উদ্দেশ্যে চাকুরিচ্যুতির নির্দেশনা জারি করে এবি ব্যাংক। সেই নির্দেশনা আজ থেকে কার্যকর হচ্ছে।

গত এপ্রিল থেকেই ছাঁটাই প্রক্রিয়া শুরু করেছে এ বি ব্যাংক। এ নিয়ে গত ২-৩ মাসে দেড় শতাধিক কর্মীকে ছাঁটাই করছে ব্যাংকটি। নাম না প্রকাশের শর্তে ব্যাংকের একাধিক কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, ১২ জুলাই, রোববার থেকে কিছু কর্মী ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। ছাঁটাই হওয়া কর্মীদের উদ্দেশ্যে এব নির্দেশনায় বলা হয়, আপনাদের সকল বকেয়া এবং পাওনা পরিশোধ করা হবে। এবি ব্যাংকের নিয়ম অনুযায়ী সকলকে তিন মাসের বেতন প্রদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। ভবিষ্যতে ব্যাংক টিকিয়ে রাখার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ অবস্থায় ব্যাংক আর অতিরিক্ত খরচ পরিচালনা করতে পারছে না। এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কোনো আইনি ব্যবস্থা নিলে তার জন্য তিনি নিজেই দায়ী থাকবেন।

বাংলাদেশের প্রথম বেসরকারি ব্যাংক হিসেবে ১৯৮২ সালে যাত্রা শুরু করে আরব বাংলাদেশ ব্যাংক। প্রতিষ্ঠার ২৫ বছর পর ব্যাংকটির নাম বদল করে রাখা হয়েছে এবি ব্যাংক। সারাদেশে ও দেশের বাইরে ১০৫টি শাখা, ৩০০টির বেশি এটিএম বুথ এবং ৫টি সহযোগী কোম্পানি রয়েছে। বর্তমানে এবি ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীর সংখ্যা প্রায় ২ হাজার ২০০ জন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম জানান, করোনার সময়ে ব্যাংক কর্মীদের নানা প্রণোদনা দিয়ে উজ্জীবিত, উৎসাহ দেওয়ার জন্য ব্যাংকগুলোকে নির্দেশনা দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। কোনো ব্যাংক কর্মীর বেতন কমানো, ইনক্রিমেন্ট বন্ধ রাখা কিংবা ছাঁটাই করা বাংলাদেশ ব্যাংক সমর্থন করে না। এটা নীতিগতভাবেও ঠিক না বরং অমানবিক কাজ।

এই বিষয়ে জানার জন্য এবি ব্যাংক কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও ব্যাংকের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায় নাই।

 

পোষ্টটি প্রয়োজনীয় মনে হলে শেয়ার করতে পারেন...
  • 10
    Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!