কুরবানির পশু জবাই করার নিয়ম ও দোয়া

কুরবানির পশু জবাই করার নিয়ম ও দোয়া

ডেস্ক রিপোর্ট :  মুসলমানদের জন্য আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের অন্যতম উপায় কুরবানি। আল্লাহ তাআলার নামে পশু জবেহ করার মাধ্যমে আদায় করতে হয় এই সন্তুষ্টি। অনেকেই কুরবানির পশু জবেহ করার নিয়ম ও দোয়া জানেন না। এটি নিয়ে সমাজে অনেক ভ্রান্ত নিয়মেরও প্রচলন রয়েছে। তবে হাদিসে কুরবানি সম্পর্কে রয়েছে সুস্পষ্ট নির্দেশনা।

সহিহ বুখারি ও মুসলিম শরীফে এসেছে, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তার নিজের কুরবানির পশু নিজেই জবাই করেছেন। নিজের কুরবানির পশু নিজেই জবাই করা মুস্তাহাব। যদি নিজের দ্বারা জবাই সম্ভব না হয় তবে অন্যের দ্বারা জবাই করানো যায়। এক্ষেত্রে জবাইয়ের সময় কুরবানির দাতা সামনে থাকা উত্তম।

গোশত খাওয়া হালাল এমন স্থলচর পশু কুরবানির জন্য প্রযোজ্য বিশেষ করে গরু, মহিষ, ছাগল, ভেড়া, উট ও দুম্বা ইত্যাদি পশুর কণ্ঠনালী, খাদ্যনালী এবং উভয় পাশের দু’টি রগ অথবা একটি রগ কাটার মাধ্যমে জবাই বা নহর সম্পন্ন হয়।

কুরবানির পশু জবাইয়ের আগে কিছু নিয়ম জানা জরুরি। আসুন জেনে নেই কুরবানির পশু জবাইয়ের নিয়ম ও দোয়া।

জবাই বা নহরের পদ্ধতি

কুরবানির পশু জবেহের দোয়া
কুরবানির পশু জবাই করার সময় মুখে (উচ্চ স্বরে) নিয়ত করা জরুরি নয়। তবে মুখে দোয়া পড়া উত্তম। অবশ্য মনে মনে নিয়ত এ নিয়ত করা যে, ‘আমি আল্লাহর উদ্দেশ্যে কুরবানি আদায় করছি।

জবাই করার সময় পশু ক্বিবলামুখী করে শোয়ানো। শোয়ানোর পর এ দোয়া পাঠ করা-
উচ্চারণ- ইন্নি ওয়াঝঝাহতু ওয়াঝহিয়া লিল্লাজি ফাতারাস সামাওয়াতি ওয়াল আরদা হানিফাও ওয়া মা আনা মিনাল মুশরিকিন। ইন্না সালাতি ওয়া নুসুকি ওয়া মাহইয়া ওয়া মামাতি লিল্লাহি রাব্বিল আলামিন। লা শারিকা লাহু ওয়া বি-জালিকা উমিরতু ওয়া আনা মিনাল মুসলিমিন। আল্লাহুম্মা মিনকা ও লাকা

বিসমিল্লাহি আল্লাহু আকবার বলাঃ
অতঃপর (بِسْمِ اللهِ اَللهُ اَكْبَر) বিসমিল্লাহি আল্লাহু আকবার বলে জবাই করা। কোনো ব্যক্তি যদি জবাই করার সময় জবাইকারীর ছুরি চালানোর জন্য সাহায্য করে, তবে তাকেও বিসমিল্লাহি আল্লাহু আকবার বলতে হবে। তবে কেউ ইচ্ছাকৃতভাবে বিসমিল্লাহ বলা পরিত্যাগ করলে জবাইকৃত পশু হারাম বলে গণ্য হবে।

কোরবানির পশু জবাই করে এ দোয়া পড়া-
উচ্চারণ- আল্লাহুম্মা তাকাব্বালহু মিন্নি  কামা তাকাব্বালতা মিন হাবিবিকা মুহাম্মাদিও ওয়া খালিলিকা ইবরাহিমা আলাইহিমাস সালাতা ওয়াস সালাম।
লক্ষ্যণীয়- যদি কেউ একাকি কোরবানি দেয় এবং নিজে জবাই করে তবে বলবে মিন্নি;
আর অন্যের কুরবানির পশু জবাই করার সময় ‘মিন’ বলে যারা কুরবানি আদায় করছে তাদের নাম বলা।

কুরবানির শুদ্ধতা
জবাই করার সময় কণ্ঠনালী, খাদ্যনালী, এবং উভয় পাশের দুটি রগ অর্থাৎ মোট চারটি রগ কাটা জরুরি। কমপক্ষে তিন যদি তিনটি রগ কটা হয় তবে কোরবানির শুদ্ধ হবে। কিন্তু যদি দু’টি রগ কাটা হয় তবে কুরবানি দুরস্ত হবে না। (হিদায়া)

ছুরি ভালভাবে ধার দেয়া
জবাই করার সময় ছুরি ভালভাবে ধার দিয়ে নেয়া, যাতে জবাইয়ের সময় পশুর অপ্রয়োজনীয় কষ্ট না হয়।

স্পাইনাল কর্ড না কাটা
অনেক সময় একটু তাড়াহুড়া বা দ্রুততার জন্য জবাইয়ের সময় স্পাইনাল কর্ড কেটে মাথা বিচ্ছিন্ন করা হয়, ফলে পশুটি স্বাভাবিক রক্তক্ষরণে মৃত্যুবরন না করে স্টোক করে মারা যায়, এতে কুরবানি শুদ্ধ হবে না। তাই তাড়াহুড়ায় স্পাইনাল কর্ড না কেটে স্বাভাবিক রক্তক্ষরণে যেন পশুটির মৃত্যু হয় এটা খেয়াল রাখতে হবে।

আল্লাহ তাআলা আমাদেরকে সঠিকভাবে কুরবানি আদায় করার তাওফিক দান করুন। আমাদের সকলের কুরবানিকে কবুল করুন। আমিন।

 

পোষ্টটি প্রয়োজনীয় মনে হলে শেয়ার করতে পারেন...
  • 66
    Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!