কোভিড-১৯: নমুনা পরীক্ষা ফের বিনামূল্যে করার সুপারিশ

কোভিড-১৯: নমুনা পরীক্ষা ফের বিনামূল্যে করার সুপারিশ

নিউজ ডেস্ক:

দেশে গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই করোনা শনাক্তের হার কমছে; এই অবস্থায় নমুনা পরীক্ষা বাড়ানো প্রয়োজন বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। তাই পরীক্ষাকেন্দ্রে ১০০ টাকা ফি-এর পরিবর্তে পুনরায় বিনামূল্যে টেস্ট করানোর সুপারিশ করেছে কোভিড-১৯ বিষয়ক জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি।

১৮ জানুয়ারি সোমবার  কোভিড-১৯ বিষয়ক জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সভায় এই সুপারিশ করা হয়। কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ সহীদুল্লাহ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই কথা জানানো হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ হারের নিম্নগতি দেখা যাচ্ছে। এই অবস্থায় নমুনা পরীক্ষা বৃদ্ধি করা প্রয়োজন। বিশেষ করে লক্ষণবিহীন সংক্রমণ নির্ণয়ের জন্য সংক্রমণ ঝুঁকিতে থাকা জনগোষ্ঠীকে পরীক্ষার আওতায় আনা প্রয়োজন। পরীক্ষাকেন্দ্রে এসে পরীক্ষার জন্য বর্তমানে ১০০ টাকা ফি নেওয়া হয়, এটি বিনামূল্যে করার সুপারিশ করছি।

সভায় নতুন পদোন্নতি পাওয়া জুনিয়র কনসালটেন্টদের বিষয়ে সুপারিশ করা হয়, তারা বর্তমানে যেসব হাসপাতালে কর্মরত আছেন সেখানেই তাদের রাখার জন্য। কমিটি মনে করে, জুনিয়র কনসালটেন্টদের পদায়ন করা হলে এবং তারা দেশের বিভিন্ন স্থানে চলে গেলে কোভিড-১৯ রোগীদের যেসব হাসপাতাল চিকিৎসা দিচ্ছেন সেখানে শূন্যতা দেখা দিতে পারে এবং চিকিৎসা কার্যক্রম ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাই প্রশিক্ষিত জনবল প্রস্তুত না করা পর্যন্ত তাদের পদোন্নতি বর্তমানে যেখানে কর্মরত আছেন, সেখানে রাখা ভালো।

কমিটির সভায় বলা হয়, কোভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসায় নিয়োজিত চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা ঘোষিত আর্থিক সহায়তা এখনও পাননি। এজন্য চলমান প্রশাসনিক প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করা দরকার।

কোভিড-১৯ জাতীয় কারিগরি পরামশর্ক কমিটির ২৫তম অনলাইন সভা কমিটির চেয়ারপারসন অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ সহিদুল্লাহ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় জাতীয় পরামশর্ক কমিটির সদস্যসহ স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. মহিবুর রহমান, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রটোকল অফিসার আমানুল হক উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, দেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের পর গত বছরের মার্চে বিনামূল্যেই নমুনা পরীক্ষা করছিল সরকার। কিন্তু গত ২৯ জুন নমুনা পরীক্ষার ফি নির্ধারণ করা হয়। যাতে করে হাসপাতাল বা নির্ধারিত বুথে গিয়ে নমুনা পরীক্ষা করালে ২০০ টাকা এবং বাড়ি থেকে নমুনা নিয়ে এলে ৫০০ টাকা ফি নির্ধারণ করে সরকার। এরপর গত ১৯ অগাস্ট সরকারিভাবে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষায় ফি ২০০ টাকার পরিবর্তে ১০০ টাকা এবং বাড়িতে গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার ফি ৫০০ টাকার পরিবর্তে ৩০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়।

পোষ্টটি প্রয়োজনীয় মনে হলে শেয়ার করতে পারেন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!