সানোফির ব্যবসা কিনে নিচ্ছে বেক্সিমকো ফার্মা

সানোফির ব্যবসা কিনে নিচ্ছে বেক্সিমকো ফার্মা

নিউজ ডেস্ক:
বহুজাতিক ওষুধ কোম্পানি সানোফি’র বাংলাদেশ ইউনিটের অধিগ্রহণ করতে যাচ্ছে দেশের শীর্ষস্থানীয় ওষুধ প্রস্তুত ও রফতানিকারক কোম্পানি বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড। বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) বেক্সিমকো ফার্মার সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সানোফি বাংলাদেশ লিমিটেডের যে ৫৪ দশমিক ৬ শতাংশ শেয়ার সানোফি গ্রুপের হাতে ছিল, তা কিনে নিতে চুক্তি করেছে তারা।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সানোফি বাংলাদেশের বাকি ৪৫ দশমিক ৪ শতাংশ শেয়ারের মধ্যে ২৫ দশমিক ৩৬ শতাংশ আছে বাংলাদেশ সরকারের শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীনে এবং ১৯ দশমিক ৯৬ শতাংশ রয়েছে বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশনের হাতে। লন্ডন স্টক এক্সচেঞ্জকে বেক্সিমকো ফার্মা জানিয়েছে, সানোফি বাংলাদেশের এই শেয়ার অধিগ্রহণের ক্ষেত্রে ভিত্তিমূল্য ধরা হয়েছে ৩৫ দশমিক ৫ মিলিয়ন পাউন্ড।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, বাংলাদেশ ব্যাংকের ফরেইন এক্সচেঞ্জ ইনভেস্টমেন্ট বিভাগের ছাড়পত্র এবং বেচাকেনার অর্থ লেনদেনের অনুমতি পেলেই সানোফির সঙ্গে চূড়ান্ত ক্রয়চুক্তি করবে বেক্সিমকো। এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে তিন থেকে ৯ মাস সময় লাগতে পারে।

বেক্সিমকো ফার্মা জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার ভার্চুয়াল এক অনুষ্ঠানে তাদের পক্ষে চুক্তিতে সই করেন কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সংসদ সদস্য নাজমুল হাসান। সানোফি বাংলাদেশের একজন প্রতিনিধি এবং ফ্রান্স থেকে সানোফি গ্রুপের শীর্ষ কর্মকর্তারা অনুষ্ঠানে যুক্ত হন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘এই অধিগ্রহণ বেক্সিমকো ফার্মার জন্য একটি শক্তিশালী কৌশলী পদক্ষেপ। এর ফলে দীর্ঘমেয়াদে উভয় কোম্পানির জন্যই নতুন নতুন সম্ভাবনা সৃষ্টি হবে। এছাড়া এই চুক্তির মাধ্যমে কোম্পানির টেকসই প্রবৃদ্ধির ভিত মজবুত হবে ও আন্তর্জাতিক বাজারে কোম্পানির সুনাম বৃদ্ধি পাবে। এই অধিগ্রহণের ফলশ্রুতিতে বেক্সিমকো হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, ক্যানসার, চর্মরোগ চিকিৎসার ওষুধ এবং ভ্যাকসিন বাজারজাতকরণের মাধ্যমে নিজেদের উপস্থিতি ও অবস্থান আরও দৃঢ় করতে পারবে।

প্রসঙ্গত, ১৯৫৮ সালে ‘মে অ্যান্ড বেকার’ নামে বাংলাদেশে ব্যবসা শুরু করে বহুজাতিক কোম্পানি সানোফি। পরে ২০০৪ সালে সানোফি-অ্যাভেন্টিস গ্রুপ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে একীভূত হয়। ২০১৩ সালে কোম্পানির নাম বদলে সানোফি বাংলাদেশ লিমিটেড রাখা হয়।

টঙ্গীতে এ কোম্পানির একটি ওষুধ তৈরির কারখানা রয়েছে। এছাড়া আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডের বিভিন্ন ভ্যাকসিন, ইনসুলিন ও কেমোথেরাপির নানা ওষুধ বাংলাদেশে আমদানি করে সানোফি। হৃদরোগ, ডায়াবেটিকস, টিউমার চিকিৎসা ও চর্মরোগের জন্য সানোফির ওষুধ বহুলভাবে ব্যবহৃত হয়।

চুক্তির আওতায় টঙ্গীতে সানোফির কারখানার কাছে ২৫ একর জায়গাজুড়ে একটি সেফালোস্পিরিন অ্যান্টিবায়োটিক তৈরির কারখানাসহ অন্যান্য ওষুধ তৈরির কারখানার মালিকানাও  পাবে বেক্সিমকো। এর আগে বেক্সিমকো ফার্মা ২০১৮ সালে নুভিস্তা ফার্মা (সাবেক অরগানন বাংলাদেশ) লিমিটেড কিনে নেয়।

পোষ্টটি প্রয়োজনীয় মনে হলে শেয়ার করতে পারেন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!