সিলেট এমসি কলেজের সবশেষ ঘটনা, ছাত্রলীগকর্মীদের ধরতে পুলিশের অভিযান

সিলেট এমসি কলেজের সবশেষ ঘটনা, ছাত্রলীগকর্মীদের ধরতে পুলিশের অভিযান

নিজস্ব প্রতিবেদন :
সিলেটের এমসি (মুরারি চাঁদ) কলেজের ছাত্রাবাসে তরুণীকে ধর্ষণের ঘটনায় মামলা হয়েছে। ওই তরুণীর স্বামী শুক্রবার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাতে বাদী হয়ে শাহপরাণ থানায় মামলা করেছেন। মামলায় এজাহার নামীয় আসামি করা হয়েছে ৬ জনকে। সেই সঙ্গে অজ্ঞাতনামা আরও ২/৩ জনকে আসামি করা হয়েছে। এদিকে, এ ঘটনার পর আজ শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টার মধ্যে ছাত্রাবাস ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

আসামিরা হলো, এম. সাইফুর রহমান, শাহ মাহবুবুর রহমান রনি, তারেক আহমদ, অর্জুন লঙ্কর, রবিউল ইসলাম ও মাহফুজুর রহমান। এরা সবাই ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। আসামিদের মধ্যে তারেক ও রবিউল বহিরাগত, বাকিরা এমসি কলেজের ছাত্র। স্বামীকে বেঁধে গৃহবধূ সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনার অন্যতম হোতা ছাত্রলীগ ক্যাডার এম সাইফুর রহমানের রুম থেকে দেশীয় ও আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাত ২টার দিকে শাহপরাণ থানা পুলিশ এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে অভিযান চালায়। এসময় সাইফুরের রুম থেকে একটি আগ্নেয়াস্ত্র, চারটি রামদা, একটি ছোরা ও জিআই পাইপ উদ্ধার করা হয়।

শাহপরাণ থানার ওসি আব্দুল কাইয়ুম বলেন, ধর্ষণের অভিযোগে থানা মামলা হয়েছে। পুলিশ আসামিদেরকে গ্রেফতারে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। সাইফুর রহমানের রুম থেকে আগ্নেয়াস্ত্র, ধারালো অস্ত্র ও ছোরা উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

জানা যায়, শুক্রবার সন্ধ্যায় স্বামীকে সঙ্গে নিয়ে এমসি কলেজে বেড়াতে আসেন ওই তরুণী। ক্যাম্পাস থেকে ছাত্রলীগের ওই ৭ কর্মী মিলে স্বামীসহ ওই তরুণীকে তুলে নেন কলেজ ছাত্রাবাসে। পরে তারা স্বামীকে বেঁধে মারধর করে ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করে। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে তাদের উদ্ধার করেন।

কলেজের ছাত্রাবাসে গৃহবধূকে ধর্ষণের ঘটনায় ছাত্রবাস ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। শনিবার দুপুর ১২টার মধ্যে ছাত্রবাস ছাড়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন হোস্টে সুপার জামাল উদ্দিন। তিনি জানান, এমসি কলেজের অধ্যক্ষ শনিবার দুপুরে জরুরি বৈঠকের আহ্বান করেছেন। সেখানে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করা হবে। করোনার সময়ে হোস্টেল বন্ধ থাকলেও ছাত্ররা কীভাবে ছাত্রাবাসে থাকছে এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘কলেজ বন্ধ হোস্টেলও বন্ধ রয়েছে। তবে কিছু শিক্ষার্থীরা টিউশনি করানোর কারণে ছাত্রাবাসে থাকছেন। যারা এখন হল ছাড়বে না তাদের বিরুদ্ধে কলেজ কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নেবে।

পোষ্টটি প্রয়োজনীয় মনে হলে শেয়ার করতে পারেন...
  • 8
    Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!