ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গাজায় জাতিসংঘের স্কুলে ইসরায়েলের হামলায়, নিহত ৩২

অনলাইন নিউজ ডেস্ক
  • আপডেটঃ ০১:২৫:৪৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জুন ২০২৪
  • / ৫৯৮ বার পঠিত

গাজায় চলমান সংঘাতের মধ্যে জাতিসংঘের একটি স্কুলে বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। মধ্য গাজার নুসেইরাত এলাকায় অবস্থিত স্কুলটিতে জোরপূর্বক বাস্ত্যুচুত হওয়া বহু বেসামরিক মানুষ আশ্রয় নিয়েছিলেন। তবে ইসরাইলি বাহিনীর দাবি, এই স্কুল হামাসের ‘আস্তানা’ হিসেবে ব্যবহার হয়ে আসছিল।

 

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা জানায়, জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনআরডব্লিউএ পরিচালিত একটি স্কুলে হামলা চালানোর কথা জানিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী। তাঁদের দাবি, স্কুলটি হামাসের ‘আস্তানা’ হিসেবে ব্যবহার হয়ে আসছিল।

 

ইসরায়েলের এমন দাবি প্রত্যাখ্যান করেছে হামাস। গাজার হামাস পরিচালিত সরকারের মুখপাত্র ইসমাইল আল-থাওয়াবেত বলেন, ‘ইসরায়েলি দখলদাররা গাজায় গণহত্যা চালাচ্ছে। অসংখ্য বাস্তুচ্যুত মানুষের ওপর চালানো নৃশংস অপরাধকে বৈধতা দিতে মিথ্যা বানানো গল্প বলছে।’

 

এদিকে গাজার মধ্যাঞ্চলে তীব্র বোমা হামলার কথা জানিয়েছেন সেখানকার বাসিন্দারা। দাতব্য সংস্থা মেডেসিনস স্যান্স ফ্রন্টিয়েরেস জানিয়েছে, হামলায় অনেকে হতাহত হয়েছে। মঙ্গলবার থেকে অন্তত ৭০ জনের মরদেহ ও ৩০০ জন আহত ব্যক্তিকে দেইর আল-বালাহ শহরের আল-আকসা হাসপাতালে আনা হয়েছে। নিহতদের অধিকাংশ নারী ও শিশু বলে জানিয়েছে দাতব্য সংস্থাটি।

 

গত বছর ৭ অক্টোবর ইসরায়েলের দক্ষিণ সীমান্তে হামাসের আকস্মিক হামলায় প্রায় ১ হাজার ২০০ জন নিহত হন। এ ছাড়া ওই সময় অন্তত ২৫১ জনকে জিম্মি করে নিয়ে যায় হামাস। এরপর থেকে গাজায় অভিযান শুরু করে ইসরায়েলি বাহিনী। ৮ মাস ধরে চলা ইসরায়েলি অভিযানে এখন পর্যন্ত নিহত হয়েছে সাড়ে ৩৬ হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি। আহত হয়েছে ৮৩ হাজারের বেশি মানুষ।

অর্থআদালতডটকম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া অন্য কোথাও ব্যবহার করা যাবে না।

error: Content is protected !!

গাজায় জাতিসংঘের স্কুলে ইসরায়েলের হামলায়, নিহত ৩২

আপডেটঃ ০১:২৫:৪৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জুন ২০২৪

গাজায় চলমান সংঘাতের মধ্যে জাতিসংঘের একটি স্কুলে বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। মধ্য গাজার নুসেইরাত এলাকায় অবস্থিত স্কুলটিতে জোরপূর্বক বাস্ত্যুচুত হওয়া বহু বেসামরিক মানুষ আশ্রয় নিয়েছিলেন। তবে ইসরাইলি বাহিনীর দাবি, এই স্কুল হামাসের ‘আস্তানা’ হিসেবে ব্যবহার হয়ে আসছিল।

 

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা জানায়, জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনআরডব্লিউএ পরিচালিত একটি স্কুলে হামলা চালানোর কথা জানিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী। তাঁদের দাবি, স্কুলটি হামাসের ‘আস্তানা’ হিসেবে ব্যবহার হয়ে আসছিল।

 

ইসরায়েলের এমন দাবি প্রত্যাখ্যান করেছে হামাস। গাজার হামাস পরিচালিত সরকারের মুখপাত্র ইসমাইল আল-থাওয়াবেত বলেন, ‘ইসরায়েলি দখলদাররা গাজায় গণহত্যা চালাচ্ছে। অসংখ্য বাস্তুচ্যুত মানুষের ওপর চালানো নৃশংস অপরাধকে বৈধতা দিতে মিথ্যা বানানো গল্প বলছে।’

 

এদিকে গাজার মধ্যাঞ্চলে তীব্র বোমা হামলার কথা জানিয়েছেন সেখানকার বাসিন্দারা। দাতব্য সংস্থা মেডেসিনস স্যান্স ফ্রন্টিয়েরেস জানিয়েছে, হামলায় অনেকে হতাহত হয়েছে। মঙ্গলবার থেকে অন্তত ৭০ জনের মরদেহ ও ৩০০ জন আহত ব্যক্তিকে দেইর আল-বালাহ শহরের আল-আকসা হাসপাতালে আনা হয়েছে। নিহতদের অধিকাংশ নারী ও শিশু বলে জানিয়েছে দাতব্য সংস্থাটি।

 

গত বছর ৭ অক্টোবর ইসরায়েলের দক্ষিণ সীমান্তে হামাসের আকস্মিক হামলায় প্রায় ১ হাজার ২০০ জন নিহত হন। এ ছাড়া ওই সময় অন্তত ২৫১ জনকে জিম্মি করে নিয়ে যায় হামাস। এরপর থেকে গাজায় অভিযান শুরু করে ইসরায়েলি বাহিনী। ৮ মাস ধরে চলা ইসরায়েলি অভিযানে এখন পর্যন্ত নিহত হয়েছে সাড়ে ৩৬ হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি। আহত হয়েছে ৮৩ হাজারের বেশি মানুষ।